বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৮:০১ অপরাহ্ন

সাংবাদিক রোজিনার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাব চত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ।

মিয়া বাবলা,সীতাকুণ্ড( চট্টগ্রাম )প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২০ মে, ২০২১
  • ৩৯০ বার পঠিত

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি ও তাঁর হেনস্তাকারীদের শুধু বদলি নয়, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সীতাকুণ্ড পুৃরাতন ঢাকা ট্রাঙ্করোডস্থ প্রেস ক্লাব চত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে।

১৯মে (বুধবার) বেলা ১২টার দিকে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাব। ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক নাছির উদ্দিন অনিকের সঞ্চালনায় ও সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে আয়োজিত এ মানবন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন, সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এম হেদায়েত ও এম সেকান্দার হোসাইন, সহ-সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক লিটন কুমার চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল ফারুক, দিদারুল হোসেন টুটুল,
কামরুল ইসলাম দুলু, জাহাঙ্গীর আলম, তালুকদার নির্দেশ বড়ুয়া,ও হাকিম মোল্লাসহ প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যখন দেশকে দুর্বার গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তখন কিছু অসাধু কর্মকর্তা সরকারের ভাবমূর্তি বিশ্বের কাছে ক্ষুণ্ন করার চেষ্টার অংশ হিসেবে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা করে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্ণীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে রোজিনা ইসলামের কলম ধরায় তাদের নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

তারা বলেন, রোজিনা ইসলামকে হেনস্তাাকারীরা শুধু তার টুটি চেপে কারাগারে পাঠাননি। সংবাদ পত্রের স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতাকে কারাগারে পাঠিয়েছে। হেনস্তার ঘটনায় জড়িতদের শুধু বদলি করলে হবে না। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।

সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এম সেকান্দার হোসাইন বলেন, ‘ করোনা ভাইরাস এসে স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের দুর্ণীতিবাজদের চিহ্নিত করার সুযোগ করে দিয়েছে। এ দুর্ণীতিবাজদের জনগণকে চিনিয়েছেন রোজিনা ইসলাম। এ মন্ত্রণালয়ের পিয়ন থেকে সর্বোচ্চ কর্মকর্তার দুর্ণীতি তদন্ত করতে দুদকের প্রতি আহবান জানান তিনি।’ সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সভাপতি সৌমিত্র চক্রবর্তী বলেন,‘ স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের গাড়ির চালক থেকে কর্মকর্তাদের এক বড় অংশ প্রত্যক্ষ দুর্ণীতির সঙ্গে জড়িত।

করোনাভাইরাস আসার পর স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের দুর্ণীতিবাজদের উৎপাত আরো বেড়ে যায়। একের পর এক প্রতিবেদন প্রকাশ দুর্ণীতিবাজদের লাগাম টানতে চেয়েছিলেন আমাদের বোন রোজিনা ইসলাম। স্বাস্থ্যমন্ত্রী দুর্ণীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে তাদের রক্ষায় নেমেছেন। তিনি এ পদে থাকার যোগ্যতা রাখেন না।’ এসময় স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পদত্যাগ ও রোজিনার হেনস্তাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..