মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

সময়ের আলোর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে গাইবান্ধায় মুক্তিযুদ্ধের পাঁচ সংগঠককে মরণোত্তর সম্মাননা।

আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২ মার্চ, ২০২১
  • ৩৬৬ বার পঠিত

জাতীয় দৈনিক সময়ের আলোর দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মঙ্গলবার গাইবান্ধায় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল, বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, কেক কাটা, মোড়ক উন্মোচন, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক সম্মাননা ও আলোচনা অনুষ্ঠান। এসব কর্মসূিচতে সম্মানীয় অতিথি ছিলেন গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র মো. মতলুবর রহমান, গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবের সভাপতি কে.এম রেজাউল হক ও সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু। প্রেস ক্লাব চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। এতে সাংবাদিকরা ছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন সামাজিক-রাজনৈতিক-সাংস্কৃতিক-নারী সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণ ও শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর সময়ের আলো গাইবান্ধা প্রতিনিধি কায়সার রহমান রোমেলের স্বাগত বক্তব্য শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে সময়ের আলোর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন করেন অতিথিরা। অতিথিদের হাতে ফুল ও শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর লোগো সম্বলিত মগ তুলে দেয়া হয়। পরে কেক কেটে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন অতিথিরা। মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের মধ্যে পাঁচ সংগঠক একাত্তরে গাইবান্ধা মহকুমা সংগ্রাম কমিটির আহŸায়ক মো. লুৎফর রহমান এম.এন.এ, যুগ্ম-আহবায়ক ওয়ালিউর রহমান রেজা এম.পি.এ, মহকুমা সংগ্রাম কমিটির সদস্য ডা. মফিজার রহমান এম.পি.এ, নির্মলেন্দু বর্মণ ও হাসান ইমাম টুলুকে মরণোত্তর সম্মাননা দেয়া হয়। এসময় তাদের স্বজনদের হাতে ফুল, ক্রেস্ট, সম্মাননা পত্র ও প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর লোগো সম্বলিত মগ তুলে দেয়া হয়। সম্মাননাপ্রাপ্তদের পরিবারের পক্ষে প্রয়াত লুৎফর রহমানের পুত্র শহিদুর রহমান সাজু, ওয়ালিউর রহমান রেজার ছোট ভাই ওয়াজিউর রহমান র‌্যাফেল, ডা. মফিজার রহমানের নাতনী নাজমুন নাহার শান্তি, নির্মলেন্দু বর্মণের জ্যেষ্ঠপুত্র ধরিত্রিন্দু বর্মণ ও হাসান ইমাম টুলুর পুত্র অ্যাড. জাহিদুল হাসান স্টালিন সম্মাননা গ্রহণ ও অনুভূতি ব্যক্ত করেন। প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা অনুষ্ঠানে রেডিও সারাবেলার সিনিয়র স্টেশন ম্যানেজার মাহফুজ ফারুকের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেয় উদীচী গাইবান্ধার সভাপতি জহুরুল কাইয়ুম, গাইবান্ধা পাবলিক লাইব্রেরি অ্যান্ড ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জনি, কালেরকন্ঠ ও দেশ টিভির গাইবান্ধা প্রতিনিধি অমিতাভ দাশ হিমুন, বিটিভি গাইবান্ধা প্রতিনিধি আবেদুর রহমান স্বপন, মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি সিদ্দিক আলম দয়াল, মহিলা পরিষদের জেলা সাধারণ সম্পাদক ও ডিবিসি নিউজের গাইবান্ধা প্রতিনিধি রিকতু প্রসাদ ও একুশে টেলিভিশনের আফরোজা লুনা প্রমুখ। দৈনিক সময়ের আলোর শুভ কামনা জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং অসহায়, সুবিধাবঞ্চিত ও নির্যাতিত মানুষের পাশে থাকার নীতিতে অবিচল থাকার প্রত্যাশা করেন বক্তারা।অনুষ্ঠানে সম্মানীয় অতিথির বক্তৃতায় গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র মো. মতলুবর রহমান বলেন, ‘সময়ের আলো শুরু থেকেই বসত্মুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে অগ্রযাত্রার মুখপত্র হিসেবে কথা বলে আসছে। ইতিবাচক ও উন্নয়ন সাংবাদিকতার প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাক দৈনিক সময়ের আলো।’ গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু বলেন, ‘সময়ের আলোর জন্ম মহান স্বাধীনতার মাসের দ্বিতীয় দিনে। ফলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় পত্রিকার ভূমিকা ছিল উলেস্নখযোগ্য। সময়ের আলো দেশের উন্নয়নে সমস্যা চিহ্নিত করেছে, আবার সমাধানের পথও জানিয়েছে।’ গাইবান্ধা প্রেস ক্লাব সভাপতি কে.এম রেজাউল হক বলেন, ‘দেশসেরা তরুণ ও চৌকস টিম দিয়ে সময়ের আলো যাত্রা শুরু করে দেশের বিদ্যমান অনেকগুলো বড় পত্রিকার মধ্যে নিজেদের নাম করে নিয়েছে কমসময়ে। দেশ গড়ার কাজে সময়ের আলোর অগ্রণী ও সাহসী ভূমিকার প্রশংসা করে তিনি বলেন, যেকোনো মূল্যে সেই নীতিতে অবিচল থাকতে হবে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..