শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

থানচি’র শিলাঝিড়িতে অভিযান চালিয়ে অবৈধ পাথর উত্তোলণ বন্ধ ঘোষণা করেন- ইউএনও।

থানচি প্রতিনিধিঃ-
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৬৮ বার পঠিত

বান্দরবানের থানচি-বলিপাড়া ইউনিয়নের শিলাঝিড়ি নামক ঝিড়িতে থানচি ইউএনও অভিযান চালিয়ে অবৈধ পাথর উত্তোলণ বন্ধ করা হয়েছে। ১৪ ফেব্রুয়ারী রবিবার বেলা ২ টার সময় স্থানীয় তথ্য ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে থানচি বলিপাড়া ইউনিয়নের হৈয়তং পাড়া ঝিড়ির ঘাট এলাকার শিলাঝিড়ি নামক ঝিড়িতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। পাথর উত্তোলনরত শ্রমিকরা অভিযানের টের পেয়ে জঙ্গলে পালিয়ে যায়। বলিপাড়া ৯ কিঃমিঃ/ থানচি ১১ কিঃমিঃ সড়ক হতে প্রায় ১৫০ গজ পূর্বে শিলাঝিড়িতে অবৈধ পাথর পাচারের উদ্দেশ্যে পাথর মজুত করা হয়। এক পর্যায়ে অত্র এলাকার ৩৬১নং থাইক্ষ্যং মৌজার হেডম্যান মংপ্রু মারমাকে ঘটনাস্থলে ডেকে আনা হয়। তারপর শিলাঝিড়ি পাথর উত্তোলণ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এসময় একটি বাড়ী একটি খামার উপজেলা ব্রাঞ্চ ম্যানাজার রনি দাশ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয়ে টেকনিশিয়ান রূপক মিত্র, উপজেলা আনসার বাহিনী প্রতিনিধি, সংবাদকর্মী ও স্থানীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতাউল গণি ওসমানী বলেন, এই উপজেলায় প্রকৃতি সৌন্দর্য্য ধ্বংস করে প্রাকৃতিক সম্পদ পাথর উত্তোলণ করতে দেয়া হবে না। আজ হতে শিলাঝিড়িতে পাথর উত্তোলণ বন্ধ করা হল। ঘটনাস্থলে কাউকে পাওয়া না যাওয়ায় পাথর উত্তোলণকারী কে বা কারা তা জানা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে জানা গেলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। উপজেলার সবগুলো অবৈধভাবে পাথর উত্তোলণ বন্ধ করা হবে। তিনি আরো বলেন, যেখানে পাথর উত্তোলণের সংবাদ পাওয়া যাবে সেখানে পাথর উত্তোলণ বন্ধ করে দেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। উল্লেখ্য, কিছু সংখ্যক পার্শ্ববর্তী লামা, চকরিয়া ও সাতকানিয়া এলাকার অসাধু ব্যবসায়ীসহ এই উপজেলায় স্থানীয় প্রভাবশালী সিন্ডিকেট ব্যবসায়ী চক্র উপজেলা প্রশাসনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে কোন প্রকার বাধা ছাড়াই ঝিড়ি হতে পাথর উত্তোলণ করে মজুত থেকে মেশিনের ভাঙ্গিয়ে দিনরাত পাচার করেই চলেছে। স্থানীরা পাথর উত্তোলণের বাধা দিলেও প্রভাবশালী সিন্ডিকেট ব্যবসায়ী চক্রের হুমকিতে পাথর উত্তোলণ বন্ধ করা যাচ্ছে না। অন্যদিকে শিলাঝিড়ি উপর ভিত্তি করে ক্ষেত খামারীরাও পানি অভাবে চাষাবাদ করতে পারছে না। যার দরুন কৃষক শ্রেণি সাধারণ মানুষের জীবন যাত্রা উপর চরম দুর্বিসহ হয়ে উঠছে। পাথর উত্তোলণের কারণে বিভিন্ন প্রজাতির শামুক, ছোট মাছ, ছোট চিংড়ি ও কাকড়াগুলো হারিয়ে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। শিলাঝিড়ি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ও সম্পদ হারিয়ে হাহাকার। শিলাঝিড়ি ইতিমধ্যে শুকিয়ে তীব্র পানির সংকট দেখা দিয়েছে। যার ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে এলাকার কৃষক শ্রেণির সাধারণ মানুষ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..