শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

তামাক চাষের দিন শেষ সূর্যমুখী তেল ফসলের চাষে উৎসাহিত কৃষক।

মোঃসোহেল রানা, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪০৭ বার পঠিত

আমন ধান কাটার পরেই আলুর বীজের মতোই বপন করা হয় সূর্যমুখী তেল ফসলের বীজ। সূর্যমুখী ফুল চাষ তামাক চাষের সময়ে ব্যাপক উপযোগী হওয়ায় অনেকেই বাদ দিয়েছে তামাকের চাষ। তবে এবছর প্রণোদান ও পূণর্বাসন কর্মসূচীর আওতায় নীলফামারী জেলায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ২৬৫ হেক্টর বা ১৯৯০বিঘা জমিতে সূর্যমুখী ফুল চাষ তেল ফসল হিসেবে আবাদ করতে সক্ষম হয়েছে। কৃষকরা লাভের মুখ দেখলে বাকী তামাক চাষীরাও সূর্যমুখী ফুলের চাষ করবে বলে প্রত্যাশা কৃষি অধিদপ্তরের। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার তামাক চাষে নিরুৎসাহিত প্রোগ্রামকে বাস্তবে রূপ দিতে নীলফামারী সদরের কুন্দুপুকুর ইউনিয়নে বারোঘড়িয়া গ্রামের চাষী গোলাম রব্বানী তামাকের বদলে করেছে ১৭বিঘা জমিতে সূর্যমুখী তেল ফসলের চাষ। এতে এ যাবত ১লক্ষ ৭০হাজার টাকা খরচের কথা জানান তিনি। বিঘা প্রতি ৮মন করে ফসলের আশা করছেন চাষী রব্বানী। অনেক চাষীরা খবর রাখছেন তার কাছ থেকে এবছর লাভবান হলে পরবর্তীতে তারাও সূর্যমুখী তেল ফসলের চাষ করবে বলে ধারনা রব্বানীর। এ বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ ওবায়দুর রহমান মন্ডল জানান, দেশে প্রতিবছর প্রায় ২৮/৩০ কোটি টাকার ভোজ্য তেল বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয়। ভোজ্য তেলের মধ্যে পাম্প অয়েল থাকলেও ভোক্তা হিসেবে আমাদের তেমন কিছুই করনীয় থাকেনা। আর এই তেল আমদানি যদি ২৫% ও কমানো যায় তাহলে প্রাথমিক ভাবে দেশের অর্থনীতি অনেক বড় একটা সমৃদ্ধ অর্থনীতি হবে। ৩ হাজার হেক্টর তামাক চাষের জমি গুলোর চাষীদের সাথে পরামর্শক্রমে কিছু জমিতে তেল ফসল হিসেবে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করতে সক্ষম হয়েছি। তবে আশা করছি আগামী এই ফসল থেকে কৃষক লাভবান হলে তামাক চাষীরাও তেল ফসল হিসেবে সূর্যমুখী ফুলের চাষ করবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..