শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ১২:০০ অপরাহ্ন

কচুয়ায় ইঞ্জিনিয়ার একেএম আব্দুল মোতালেবের বিরুদ্ধে অপপ্রচার। 

মোঃ হারুনুর রশিদ-কচুয়া প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৬৩ বার পঠিত

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, কচুয়া উপজেলা আ্ ওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ,আইডিইবি কেন্দ্রিয় কমিটির সহসভাপতি ও বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা, ইঞ্জিনিয়ার একে.এম আব্দুল মোতালেবকে নিয়ে ঘৃন্য অপপ্রচার করার অভিযোগ উঠেছে।

একটি বিশেষ মহল তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা ঘটনার রটিয়ে তাঁর সুনাম নষ্ট করার উদ্দেশ্যে এ ধরনের অপপ্রচার করেছে বলে তিনি দাবি করেন।

সম্প্রতি তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপ-প্রচারের পর তিনি শুক্রবার তাঁর নিজ বাড়ি কচুয়ার নলুয়া গ্রামে স্থানীয় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ওই ঘটনার বিবৃতি প্রদান করেন।

তিনি নিজেকে শতভাগ নির্দোষ দাবি করে বলেন, আমি একটি মহলের দ্বারা প্রতিহিংসার শিকার। আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান। গনপূর্ত বিভাগের উপ-সহাকারী প্রকৌশলী পদে চাকরি করেছি।

বর্তমানে চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ, সাধারন আইডিইবি’র সাথে গুরুত্বপূর্ন পদে দায়িত্ব পালন করছি।

অন্যদিকে নিজ এলাকার কচুয়ার দৌলতপুর সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি,নলুয়া বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি,নলুয়া হাজী ইদ্রিস মুন্সী শিশু সদনের সাধারন সম্পাদকসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত আছি।

এছাড়া মহামারী করোনায় আমার নিজ এলাকায় এতিম,অসহায়,গরীব,প্রতিবন্দীদের শীতবস্ত্র,ঈদ সামগ্রী,খাদ্য সামগ্রী ,টিন সহায়তা ও নগদ আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছি।

কিছুদিন পূর্বে ঢাকার মগবাজারে আমার অফিসিয়াল কাজে যাই। সেখানে একটি অপ্রীতিকর ঘটনায় জড়িয়ে আমাকে হয়রানি ও সন্মানহানির চেষ্টা চলছে।

প্রকৃত পক্ষে ওই ঘটনায় আমি কোনো ভাবেই জড়িত নই। বিষয়টি শুধুমাত্র পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র। আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। এ নিয়ে আপাতত কিছু বলতে চাই না। তবে বিষয়টি সমাধান হলে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে সমীচিন জবাব দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, আপনারা সকলেই অবগত আছেন আমি এবং আমার স্ত্রী দীর্ঘদিন করোনায় আক্রান্ত হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ (পিজি) হাসাপাতলে চিকিৎসাধীন ছিলাম।

আমি হাসপাতাল থেকে বের হওয়ার পরপর একটি মহল আমার পরিবার ও আমাকে নিয়ে অপ-প্রচারে লিপ্ত হয়। তাই বলব না জেনে না বুঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা মিডিয়া কারো বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করা ঠিক না। আমি প্রকাশিত ওই সংবাদগুলোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি, এবং আমার আত্মীয় স্বজন,ভাই বন্ধু ও পরিচিতজন এ অপ-প্রচারে বিভ্রান্ত না হতে সবিনয় অনুরোধ করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..